জয়পুর স্থানীয় আকর্ষণসমূহ

জয়পুর ভ্রমণানন্দের চরম উতকৃষ্ট স্থান যখন সন্ধ্যায় এর ফিকে লাল ও কমলা রঙের দ্যুতি ছড়ায়। উজ্জ্বল স্থাপত্যের সাথে যুক্ত হয়েছে রাজস্থানীদের উজ্জ্বল সাজপোশাক। রাজস্থানের রাজপথ উটচালিত শকট দ্বারা শোভিত যা রাজস্থানের জীবনস্পন্দনকে পরিপূর্ণতা দান করেছে।

শহরের অসাধারণ প্রাসাদগুলির মধ্যে হাওয়া মহল এবং সিটি প্রাসাদ উল্লেখযোগ্য। সিটি প্রাসাদের ঠিক পাশেই অবস্থিত জন্তর-মন্তর, জয়সিংহ নির্মিত পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মানমন্দির। এই মানমন্দির প্রমাণ করে জ্যোতির্বিদ্যায় জয় সিংহের অসাধারণ ক্ষমতা। জয় সিংহ প্রতিষ্ঠিত পাঁচটি মান মন্দিরের মধ্যে জন্তর-মন্তর সর্বশ্রেষ্ঠ। অন্য মানমন্দিরগুলি দিল্লী, বারানসি ও উজ্জয়িনিতে অবস্থিত। দুঃখের বিষয় মথুরায় প্রতিষ্ঠিত মানমন্দিরটি ধ্বংস হয়ে গিয়েছে।

কেন্দ্রীয় যাদুঘর পুরাতন নগরীর দক্ষিণাংশে রাম নিবাস গার্ডনে অবস্থিত। এই যাদুঘরে জয়পুরের মহারাজার দুর্লভ পোর্টেªট, সাজপোশাক, জয়পুরের বিভিন্ন স্থানের কাঠের কাজ এবং অন্যান্য অণুচিত্র ও শিল্পকলা স্থান পেয়েছে। এখানে বাগানে ছোট একটা চিড়িয়াখানা এবং আর্ট গ্যালারী রয়েছে।

জয়পুরের চারপাশের আকর্ষণ
জয়পুরের প্রধান ভ্রমণ আকর্ষণ সমূহ আম্বার রোডে অবস্থিত। জয়পুর থেকে ১১ কি.মি. দুরের আম্বার রাজস্থানের প্রচীন রাজধানী। আম্বার দুর্গ মনোমুগ্ধকর রাজপুত স্থাপত্যের নিদর্শন।

জয়পুর থেকে ৬.৫ কি.মি. দুরে অবস্থিত আম্বারের দিকে যাওয়ার পথে গাইটোর নামক জায়গায় রাজকীয় পরিবারের সমাধিক্ষেত্র অবস্থিত। এই সমধিক্ষেত্রের ঠিক উল্টোদিকে লেকের মাঝখানে বিখ্যাত জল মহল অবস্থিত। ৬.৫ কি.মি. দুরে সুন্দর নাহারগড় দুর্গ অবস্থিত যা রাতের বেলায় বিশেষ আলোয় সজ্জিত । আম্বার থেকে মাত্র কিছু দুরে ১৭২৬ সালে নির্মিত জয়গড় দুর্গ অবস্থিত।

সামোড় গ্রাম এবং প্রাসাদ জয়পুরের ৫০ কি.মি. দুরে অবস্থিত এবং এটি অপর একটি আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র। গাল্টায় সান গড মন্দির, সেসোড়িয়ার রানী প্রাসাদ ও বাগান, বালাজি ও সঙ্গনের জায়গাগুলি অসাধারণ দর্শনীয় স্থান।

Social Media