হুবেই প্রদেশকে জানুন

চীনের কেন্দ্রীয় প্রদেশ হলো হুবেই প্রদেশ। হুবেই এর অর্থ হলো ‘হ্রদের উত্তর’ কেননা এটি ডংটিং হ্রদের উত্তরে অবস্থিত। ঊহান হুবেই এর রাজধানী শহর।

হুবেই এর সাথে হেনান, আনহুই, জিয়াংসি, হুনান, চংকিং এবং শানসি প্রদেশের সীমান্ত রয়েছে। ‘থ্রী জর্জেস ড্যাম’ হুবেই প্রদেশের পশ্চিমে ঈচ্যাং শহরে অবস্থিত।

হুবেই এর ইতিহাস
কালো মৃত্যুর প্রাদুর্ভাব হুবেই প্রদেশকে ১৩৩৪ ও ১৩৬৮ সালে ধ্বংস করে ফেলেছিল। মিং শাসকদের দ্বারা মোঙ্গলরা বিতাড়িত হয়।

বর্তমানের ঊহানে উচ্যাং বিদ্রোহ শুরু হয়েছিল ১৯১১ সনে। কিং রাজবংশকে অপসারন করে চীনা প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠা লাভ করে। ওয়াং জিংগুয়েই পরিাচালিত কুওমিংটাং এর বাম শাখা ঊহানকে সরকারের একটি সীটে পরিনত করেন। এই সরকার নানজিং এর চিয়াং কাই শেকের সরকারের সাথে যুক্ত হয়। দ্বিতীয় ওয়ার্ল্ড ওয়ারের সময়ে জাপান হুবেই এর পূর্বাংশ দখল করে নেয়। পশ্চিমাংশ যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে বরাবর চীনের নিয়ন্ত্রণে থাকে।

১৯৯৩ সনে ঈচ্যাং এর নিকট ইয়াংতজি নদীর উপরে ‘থ্রী জর্জেস ড্যাম’ নির্মান শুরু হয়।

হুবেই এর ভৌগলিক অবস্থান
মধ্য ও পূর্ব হুবেই এর অধিকাংশ অঞ্চল সমতল। পশ্চিমাঞ্চল পর্বতময়, সেখানে ঊডাং, ডাবা এবং জিংশান পর্বতসমূহ রয়েছে। উত্তর-পূর্বে ডেবী পর্বত, উত্তরে টংবি পর্বত এবং দক্ষিণ-পূর্বে মুফু পর্বত রয়েছে। শেনং শৃঙ্গ হচ্ছে হুবেই এর সর্বোচ্চ শৃঙ্গ। এই শৃঙ্গ ডাবা পর্বতমালায় অবস্থিত এবং উচ্চতা হচ্ছে সমুদ্রপৃষ্ঠ হতে ৩১০৫ মিটার উচ্চে।

হুবেই পূর্বদিকে ইয়াংতজি নদী দ্বারা বেষ্টিত। থ্রী জর্জসের মধ্য দিয়ে এই নদী প্রবাহিত। শেং নং ও হানশুই নদী উত্তর দিক থেকে বয়ে গিয়েছে। ইয়াংতজি নদীর উপনদী শেং নং থ্রী জর্জেস ড্যাম প্রকল্প দ্বারা ক্রমহ্রাসমান হয়েছে। ইয়াংতজি ও হানশুই নদীর মোহনায় রাজধানী শহর ঊহান অবস্থিত।

হুবেইকে হ্রদের প্রদেশ বলা হয় কেননা এখানে হাজার হাজার মনোহারী হ্রদ রয়েছে। সবচেয়ে বড় হ্রদগুলির মধ্যে রয়েছে হংঘু ও লিয়াংজি হ্রদ।

হুবেই এ প্রায় গ্রীষ্মমন্ডলীয় জলবায়ু ও বিশিষ্ট কয়েকটি ঋতু বিদ্যমান। শীতকালে ১-৬ ডিগ্রী সে. তাপমাত্রা এবং গ্রীষ্মে ২৪-৩০ ডিগ্রী সে.। রাজধানী শহর ঊহান হচ্ছে সবচেয়ে গরম শহর এবং গ্রীষ্মে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রী সে. পর্যন্ত উঠে যায়। শাশী, শিইয়ান জিংমেন এবং ঊহান হলো হুবেই এর প্রধান প্রধান শহর।

হুবেই প্রদেশের স্থানীয় অর্থনীতি
গম, চা, তুলা এবং ধান হচ্ছে হুবেই এর প্রধান কৃষিজাত পন্য এবং উচ্চ প্রযুক্তির জিনিসপত্র, মেটালার্জি, শক্তি উতপাদন, টেক্সটাইলস, খাদ্যসামগ্রী, যন্ত্রপাতি এবং অটোমোবাইল্‍স হলো হুবেই এর প্রধান প্রধান শিল্প। হুবেই এ প্রচুর পরিমানে খনিজ সম্পদ বিদ্যমান, যেমন, লোহা, ভ্যানাডিয়াম, জিপসাম, ফসফরাস, বোরাক্স, রক সল্ট, কপার, হংশিইটি, মার্লস্টোন, ওলাস্টনাইট, গারনেট, রম্নটাইল, ম্যাঙ্গানিজ এবং গোল্ড এমালগাম। পশ্চিম হুবেই এ থ্রী জর্জেস ড্যাম সমাপ্তির পথে এবং এটি সমাপ্ত হলে জলবিদ্যুত উতপন্ন হবে যা চীনের বিদ্যমান জলবিদ্যুত শিল্পে যোগ হবে। থ্রী জর্জেস ড্যাম বছরে ৮৪,৭০০ জিডবিস্নউএইচ বিদ্যুত শক্তি উতপাদন করবে বলে আশা করা হচ্ছে। ২০০৭ সনে হুবেই এ সর্বনিম্ন জিডিপি ছিল ৯১৫ বিলিয়ন ইউয়ান এবং মাথাপিছু জিডিপি ছিল ১৪,৭৩৩ আরএমবি। হুবেই এর অর্থনীতি চীনের দ্বাদশ বৃহত্তম অর্থনীতি।

হুবেই প্রদেশের স্থানীয় সংস্কৃতি
গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের অন্যতম প্রধান একটি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র হলো হুবেই এর রাজধানী ঊহান। হুবেই এর আছে মুখে জল আনার মতো বেশ কিছু খাবারের তালিকা তার মধ্যে একটি হলো ‘ফিশ অব ঊচ্যাং’।

হুবেই এ অনেক চীনা ঐতিহ্যগত অপেরা রয়েছে তার মধ্যে চুজু ও হানজু অন্যতম।

হুবেই প্রদেশের স্থানীয় যোগাযোগ ব্যবস্থা
চীনে যোগাযোগ শিল্পে হুবেই প্রদেশের একটা বড় ভূমিকা রয়েছে কেননা এখানে হানশুই ও ইয়াংতজি নদীতে অনেক পানিপথ রয়েছে। হুবেই প্রদেশে অনেক গুরম্নত্বপূর্ণ রেল সংযোগ ও রয়েছে যেমন, ‘ঝিচেং-লিউজু’ অথবা ‘বেইজিং-কাউলূন’ ইত্যাদি। ঊহান, সানজিয়া, ঈচ্যাং, শানসি ও জিয়ানফ্যানে রয়েছে পাঁচটি স্থানীয় বিমানপথ।

হুবেই এ যা যা দেখার আছে
হুবেই এ দর্শনযোগ্য বিখ্যাত অনেককিছুই রয়েছে কেননা এটি পূর্ব ঝূ রাজবংশ শাসিত চু রাষ্ট্রের কেন্দ্র ছিল। এর নিজস্ব চমতকার সংস্কৃতি রয়েছে। ভ্রমণকারীরা এখানে জিউগং পাহাড়, জিংঝু শহর, থ্রী জর্জেস ড্যাম অথবা উডাং পর্বতমালা দেখতে পারেন।

Social Media