গানসু প্রদেশকে জানুন

চীনের গানসু প্রদেশের ২৬ মিলিয়ন জনসংখ্যা রয়েছে। ইয়েলো রিভার গানসু প্রদেশের দক্ষিণ অংশ দিয়ে বয়ে গিয়েছে এবং এই প্রদেশ ইনার মঙ্গোলিয়ান স্বায়ত্বশাসিত অঞ্চলে হুয়াংতু ও কিংহাই মালভূমির মাঝে অবস্থিত।

গানসু প্রদেশের উত্তরে মঙ্গোলিয়া এবং পশ্চিমে জিনজিয়াং উইঘার স্বায়ত্বশাসিত অঞ্চল রয়েছে। লানঝু শহর হচ্ছে গানসু প্রদেশের রাজধানী শহর এবং এটি প্রদেশের দক্ষিণ-পূর্ব অংশে অবস্থিত।

গানসু প্রদেশের ইতিহাস
গানসু প্রদেশের চীন সাম্রাজ্যের পূর্বতন হান ও মিং রাজবংশের শাসনামলের সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে।

চীনের ‘গ্রেট ওয়াল’ হান রাজবংশের সময়ে গানসুর মধ্য দিয়ে বর্ধিত করা হয়েছিল।

‘ইয়াংগুয়ান দুগর্’ এবং ‘কৌশলগত জেড গেট পাস’ মিং রাজবংশের সময়ে নির্মীত করা হয় ।

অতীতে, গানসু প্রদেশের অনেক অধিবাসী ইসলাম গ্রহণ করেছিল ৮৪৮ সন থেকে ১০৩৬ সন পর্যন্ত যখন উইঘার জাতি গঠিত হয়েছিল।

গানসুর মধ্য দিয়ে ‘সিল্ক রূট’ চলে যাওয়ার কারনে গানসু ক্রমে অর্থনৈতিকভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে।

গানসু প্রদেশের স্থানীয় অর্থনীতি
গানসু প্রদেশ বরাবর সুপরিচিত হয়ে আছে চীনা ঔষধি গাছ-গাছড়ার জন্যে। গানসুর কৃষিজাত পন্যের মধ্যে আছে তরমুজ, বাজরা, ভুট্টা, গম এবং তুলা কিন্ত্ত গানসুর অর্থনীতির বিরাট অংশ দখল করে আছে খনিজ সম্পদ।

বর্তমানে গানসু প্রদেশে বিশাল জিঙ্ক, টাঙ্গস্টেন, প্ল¬াটিনাম, ক্রোমিয়াম এর খনি রয়েছে। গানসুর চাংকিং এবং ইউমেন এর তেল উতপাদন ক্ষেত্র চীনের অর্থনীতিতে মূল্যবান অবদান রাখছে।
গানসু প্রদেশে ভ্রমন আকর্ষণ সমূহ

গানসু প্রদেশের অনেক ভ্রমন আকর্ষণ সমূহ রয়েছে আন্তর্জাতিক ও আভ্যন্তরীণ পর্যটকদের জন্য।

‘জিয়াইউগুয়ান পাস’
‘জিয়াইউগুয়ান পাস’ হচ্ছে গ্রেট ওয়ালে প্রবেশের সবচেয়ে প্রবেশ তোরণ। ‘জিয়াইউগুয়ান পাস’ নির্মিত হয়েছিল মিং রাজবংশের শাসনামলের প্রথমদিকে ১৩৭০ সনের কাছাকাছি সময়ে।
‘দি মোগাও গ্রটোজ অব লো-ত্‍সান’

লো-ত্‍সান নামে একজন সন্যাসী এসেছিলেন ‘ইকোইং স্যান্ড’ পর্বতের কাছে। একদিন তিনি এক দৃশ্যে তাঁর সামনে সোনালী আলোকরশ্বি যার মধ্যে তিনি দেখলেন এক হাজার গৌতম বুদ্ধ। সন্যাসী ৩৩৬ সনে এই আচ্ছাদিত গুহার স্থাপত্য তৈরী শুরু করেন।

চীনের প্রাচীন সিল্ক রোড
চীনের প্রাচীন সিল্ক রোড শুরু হয়েছিল গানসু প্রদেশ থেকে এবং শেষ হয়েছিল কন্সটান্টিনোপলে। এই সিল্ক রোডই ছিল সওদাগরদের একমাত্র পথ পৃথিবীর পূর্ব থেকে পশ্চিম পর্যন্ত ভ্রমনের। ব্যবসায়ীদের টাটকা জিনিস সরবরাহের ও ভ্রমনের পথ ছিল ‘টাকলামাকান’ মরুভূমির মধ্য দিয়ে।

বিঙলিং মন্দির
বিঙলিং মন্দির যা নাকি স্থানীয়দের কাছে আচ্ছাদিত গুহা নামে পরিচিত, এগুলো হচ্ছে ইয়েলো নদীর ধারে গুহা সমাবেশ । এখানে বিশাল মৈত্রীয়া বুদ্ধ মূর্তি রয়েছে যার উচ্চতা ২৫ মিটারের চেয়েও লম্বা। বিঙলিং মন্দিরে প্রবেশের একমাত্র উপায় হচ্ছে গ্রীষ্মকালে ইয়ংজিং থেকে নৌকাযোগে সেখানে যাওয়া।

‘দি লাবরাং তিব্বতীয় মনাসটেরী’
‘দি লাবরাং তিব্বতীয় মনাসটেরী’ তিব্বতীয় ঐতিহ্যের প্রধান মঠগুলির অন্যতম। ‘দি লাবরাং তিব্বতীয় মনাসটেরী’ গানসু প্রদেশের দক্ষিণে জিয়াহে কাউন্টির স্বায়ত্বশাসিত গান্নান জেলায় অবস্থিত।

Social Media